যুদ্ধের ঝুঁকির মুখে রয়েছে ইউক্রেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেঙ্কো বলেছেন, তার দেশের সীমান্তে রাশিয়া দ্রুত গতিতে সেনা মোতায়েন বাড়িয়ে দেয়ায় দেশটি এখন পূর্ণাঙ্গ যুদ্ধের ঝুঁকির মুখে রয়েছে।

গত মঙ্গলবার টেলিভিশনে প্রচারিত এক সাক্ষাৎকারে তিনি এমন আশঙ্কার কথা জানান। পোরোশেঙ্কো বলেন, আমাদের সীমান্তে রুশ ট্যাংকের সংখ্যা তিনগুণ করা হয়েছে। সীমান্তে রাশিয়ার মোতায়েন করা সেনা ইউনিটের সংখ্যাও নাটকীয়ভাবে বাড়ানো হয়েছে।

তিনি বলেন, রাশিয়ার পক্ষ থেকে সেনা উপস্থিতি বাড়ানোর অর্থই হচ্ছে ইউক্রেন এখন পূর্ণাঙ্গ যুদ্ধের ঝুঁকির মাঝে রয়েছে। তিনি সীমান্তে রুশ সেনা বাড়ানোর কথা বললেও সুনির্দিষ্ট সংখ্যা জানাতে পারেননি। পোরোশেঙ্কো বলেন, ২০১৪ সালে ক্রিমিয়াকে রাশিয়ার সঙ্গে যুক্ত করে নেওয়ার পর সেখানে রুশ সেনা সংখ্যা তিনগুণ করা হয়েছে।

রাশিয়ার হাতে আটক ইউক্রেনের নাবিকদের বিষয়ে তিনি বলেন, তাদের মুক্তির জন্য সরকার প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেবে। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জানান, নাবিকদের বিষয়ে রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের সঙ্গে ফোনালাপের অনুরোধ জানানো হয়েছে। কিন্তু মস্কোর পক্ষ থেকে এখনও কোনও জবাব পাওয়া যায়নি। এছাড়া, আটক নাবিকদের মুক্তির বিষয়ে জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলকেও জানানো হয়েছে যাতে তিনি বিষয়টি নিয়ে পুতিনের সঙ্গে আলোচনা করেন। সূত্র: পার্স টুডে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *