রাতের নিরাপত্তায় শয়তানের শেখানো দোয়া!

ধর্মপাতা: মাওলানা সাখাওয়াত উল্লাহ: আবু হুরায়রা (রা.) বলেন, আল্লাহর রাসুল (সা.) আমাকে রমজানের জাকাত সংগ্রহ করার দায়িত্বে নিযুক্ত করলেন। এক ব্যক্তি এসে অঞ্জলি ভর্তি করে খাদ্যসামগ্রী নিতে লাগল। আমি তাকে পাকড়াও করলাম এবং বললাম, আল্লাহর কসম! আমি তোমাকে আল্লাহর রাসুল (সা.)-এর কাছে উপস্থিত করব। সে বলল, আমাকে ছেড়ে দিন। আমি খুব অভাবগ্রস্ত, আমার জিম্মায় পরিবারের দায়িত্ব আছে আর আমার প্রয়োজন অনেক বেশি। তিনি বলেন, আমি লোকটিকে ছেড়ে দিলাম। যখন সকাল হলো, রাসুল (সা.) আমাকে জিজ্ঞেস করলেন, হে আবু হুরায়রা, তোমার রাতের বন্দির সঙ্গে কী আচরণ করলে? আমি বললাম, হে আল্লাহর রাসুল! সে তার তীব্র অভাব ও পরিবার-পরিজনের কথা বলায় তার প্রতি আমার দয়া হয়, তাই তাকে ছেড়ে দিয়েছি। তিনি বলেন, সাবধান! সে তোমার কাছে মিথ্যা বলেছে এবং সে আবার আসবে।

সে আবার আসবে আল্লাহর রাসুলের এ কথা শোনার কারণে আমি বুঝতে পারলাম যে সে পুনরায় আসবে। কাজেই আমি তার অপেক্ষায় থাকলাম। সে এলো এবং অঞ্জলি ভরে খাদ্যসামগ্রী নিতে লাগল। আমি তাকে ধরে ফেললাম এবং বললাম, আমি তোমাকে আল্লাহর রাসুলের কাছে নিয়ে যাব। সে বলল, আমাকে ছেড়ে দিন। কেননা আমি খুবই দরিদ্র এবং আমার ওপর পরিবার-পরিজনের দায়িত্ব ন্যস্ত, আমি আর আসব না। তার ওপর আমার দয়া হলো এবং আমি তাকে ছেড়ে দিলাম। সকাল হলে আল্লাহর রাসুল (সা.) আমাকে জিজ্ঞেস করলেন, হে আবু হুরায়রা! তোমার বন্দির সঙ্গে কী আচরণ করলে? আমি বললাম, হে আল্লাহর রাসুল! সে তার তীব্র প্রয়োজন এবং পরিবার-পরিজনের কথা বলায় তার ওপর আমার দয়া হয়।

তাই আমি তাকে ছেড়ে দিয়েছি। তিনি বলেন, খবরদার! সে তোমার কাছে মিথ্যা বলেছে এবং সে আবার আসবে। তাই আমি তৃতীয়বার তার অপেক্ষায় রইলাম। সে এলো এবং অঞ্জলি ভর্তি করে খাদ্যসামগ্রী নিতে লাগল। আমি তাকে পাকড়াও করলাম এবং বললাম, আমি তোমাকে আল্লাহর রাসুলের কাছে অবশ্যই নিয়ে যাব। এ হলো তিনবারের শেষবার। তুমি প্রত্যেকবার বলো যে আর আসবে না, কিন্তু আবার আসো। সে বলল, আমাকে ছেড়ে দাও।

আমি তোমাকে কয়েকটি কথা শিখিয়ে দেব। যা দিয়ে আল্লাহ তোমাকে উপকৃত করবেন। আমি বললাম, সেটা কী? সে বলল, যখন তুমি রাতে শয্যায় যাবে তখন আয়াতুল কুরসি পড়বে। তখন আল্লাহর পক্ষ থেকে তোমার জন্য একজন রক্ষক নিযুক্ত হবে এবং ভোর পর্যন্ত শয়তান তোমার কাছে আসতে পারবে না। কাজেই আমি তাকে ছেড়ে দিলাম। ভোর হলে আল্লাহর রাসুল (সা.) আমাকে বলেন, গত রাতে তোমার বন্দি কী করল? আমি বললাম, হে আল্লাহর রাসুল! সে আমাকে বলল, সে আমাকে কয়েকটি বাক্য শিক্ষা দেবে, যা দিয়ে আল্লাহ আমাকে লাভবান করবেন। তাই আমি তাকে ছেড়ে দিয়েছি। তিনি আমাকে বলেন, ওই বাক্যগুলো কী? আমি বললাম, সে আমাকে বলেছে, যখন তুমি তোমার বিছানায় ঘুমাতে যাবে তখন আয়াতুল কুরসি পড়বে।

এতে আল্লাহর পক্ষ থেকে তোমার জন্য একজন রক্ষক নিযুক্ত থাকবেন এবং ভোর পর্যন্ত তোমার কাছে কোনো শয়তান আসতে পারবে না। সাহাবায়ে কেরাম কল্যাণের জন্য বিশেষ লালায়িত ছিলেন। এ কথা শুনে রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, হ্যাঁ, এ কথাটি তো সে তোমাকে সত্য বলেছে। কিন্তু হুঁশিয়ার, সে মিথ্যুক। হে আবু হুরায়রা! তুমি কি জানো, তিন রাত ধরে তুমি কার সঙ্গে কথাবার্তা বলেছিলে। আবু হুরায়রা (রা) বলেন, না। মহানবী (সা.) বলেন, সে ছিল শয়তান। এভাবেই রাতের নিরাপত্তা লাভের দোয়া শিখিয়েছে শয়তান! (বুখারি, হাদিস : ২৩১১)

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *