রাশিয়ায় মার্কিন নৌসেনার ১৬ বছরের কারাদন্ড

বিদেশ : যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীর সাবেক এক কর্মকর্তাকে ১৬ বছরের কারাদ- দিয়েছে রাশিয়ার একটি আদালত। সোমবার রাজধানী মস্কোর একটি আদালত পল উইলান নামে ওই মার্কিন নৌসেনার বিরুদ্ধে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে এমন রায় দেয়। রায় দেওয়ার পর আসামির জন্য নির্ধারিত সুরক্ষিত কাচের ঘর থেকে আদালতের এই বিচারকার্যকে ‘সাজানো নাটক’ বলে প্রতিবাদ করেন পল উইলান।

এ সময় তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীসহ যুক্তরাজ্য ও কানাডার মতো প্রভাবশালী দেশের নেতৃত্বকে এ ব্যাপারে হস্তক্ষেপের আহ্বান জানান। রায়েল পরই মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এর বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে অবিলম্বে উইলানের মুক্তি দাবি করেছেন। গোপনে বিচার প্রক্রিয়া চালানো হয়েছে এবং বিচার নিরপেক্ষ হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

প্রথম ধাক্কার পর আবার এই ভাইরাস প্রকট হয়ে উঠতে থাকায় নতুন করে বহাল হচ্ছে কঠোর সব বিধিনিষেধ। উইলান জন্মসূত্রে একজন আইরিশ এবং ব্রিটিশ নাগরিক। কানাডার নাগরিকত্ব তার রয়েছে। পরবর্তীতে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব নেন। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে রাশিয়ার রাজধানী মস্কোর একটি হোটেলে অবস্থানকালে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এ সময় তার বিরুদ্ধে আনা হয় গুপ্তচর মিশনে জড়িত থাকার অভিযোগ। এরপর থেকেই তাকে মস্কোর লেফোরটোভো কারাগারে বন্দি করে রাখা হয়েছে। হুইলেনের আইনজীবী ভøাদিমির ঝেরেবেনকভ এর আগে বলেছিলেন, উইলান নিজের অজ্ঞাতেই রাশিয়ার ‘অতি-গোপন’ রাষ্ট্রীয় তথ্য ভর্তি একটি ফ্ল্যাশড্রাইভ কারো কাছে হস্তান্তর করেন।

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ জানান, উইলান প্রমাণসহ ‘হাতেনাতে’ ধরা পড়েছেন। তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে উইলান বন্দি থাকাকালে তাকে চিকিৎসা সেবা না দেওয়ার পাল্টা অভিযোগ করেন। পল উইলানের পরিবার অবশ্য বলছে, মস্কোতে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতেই তিনি সেখানে ভ্রমণ করছিলেন, এ সময় মিথ্যে অভিযোগে তাকে ফাঁসানো হয়।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *