শপথ নিলেন পাবনা পৌরসভার মেয়র শরীফ প্রধান

নিজস্ব প্রতিবেদক : সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘোটিয়ে ঐতিহ্যবাহী পাবনা পৌরসভার মেয়র হিসাবে শপথ নিলেন সাবেক ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতা সতন্ত্র নবনির্বাচিত মেয়র শরীফ উদ্দিন প্রধান। (২৪ ফেব্রæয়ারী) বুধবার রাজশাহী জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলোনায়তনে স্থানীয় সরকার বিভাগের রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর সাংবিধানিক বিধি মেনে সম্প্রতি রাজশাহী বিভাগের পৌরসভা নির্বাচনে নির্বাচিত মেয়র, সংরক্ষিত আসন ও সাধারন আসনের কাউন্সিলরগণদের শপথ বাক্য পাঠ করান।

রাজশাহী বিভাগের অন্তগত রাজশাহী, পাবনা, চাপাইনবাবগঞ্জ, নাটোর, নওগাঁ ও বগুড়া জেলার ১২টি পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলরগন একই সাথে শপথ বাক্য পাঠ করেন।
চলতি মাসের ১৫ ফেব্রæয়ারী রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখা থেকে এক চিঠির মাধ্যমে চলতি মাসের (২৪ ফেব্রæয়ারী) শপথের দিন নির্ধারন করা হয়। নিয়ম অনুযায়ী সকাল ১১ টায় উস্থিত হয়ে মেয়র ও কাউন্সিলরগণনেরা নিজ নিজ রিপোট পেশ করেন। রিপোটিং শেষে বেলা সারে ১২ টায় সাংবিধানিক নিয়ম অনুসরণ করে অনুষ্ঠিত হয় শপথ অনুষ্ঠান।
যেসকল পৌরসভার মেয়র, কাউন্সেলরগন শপথ নিলেন  রাজশাহী জেলার মুক্তগাছা পৌরসভা ও কেশবহাট পৌরসভা, পাবনা জেলার পাবনা সদর পৌরসভা, চাপাইনবাগঞ্চ জেলার রহনপুর পৌরসভা,নাটোর জেলার সংিড়া পৌরসভা, নওগাঁ জেলার নওগা সদর ও ধামরাই পৌরসভা, বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ, ধুনট,নন্দীগ্রাম,গাবতলী ও কাহালু পৌরসভা। এই ১২টি  পৌরসভার ১২ জন মেয়র, সংরক্ষিত আসনে ৩৯ ও সাধারন আসনের ১১৭ জন কাউন্সেলরগন শপথ নিয়েছেন।
শপথ বাক্য পাঠের পূর্বে স্থানীয় সরকার রিাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার ড. মোঃ হুমায়ুন কবির উপস্থিত জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা যারা এই নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন তারা একটি অভুতপূর্ব সম্মান পেয়েছেন। আপনারা আগামী দিনে আবার যখন নির্বাচন হবে তখন কেউ যদি পরাজিত হন তবুও আপনাকে মেয়র বা কাউন্সিল বলে সম্মেধন করবেন মানুষ। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা এই বাংলাদেশকে আধুনিক ও যুগউপযোগী করে গড়ে তোলার জন্য কাজ করছেন। জনগনের দৌড় গোড়ায় সেবা পৌছে দেবার লক্ষে দিনরাত পরিশ্রম করেছেন। এই দেশ যখন পরাধীন ছিলো তখন কোন উন্নয়ন হয়নি। পূর্ব পাকিস্তান আর পশ্চিশ পাকিস্তান একই সাথে থাকলেও আমরা বঞ্চিত ছিলাম সকল স্থানে। বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ডাকদিয়ে আমাদের সেই পরাধিনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্ত করেছেন। দেশ স্বাধীনেরর পরে সল্প কিছু সময় পেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। আর সেই সল্প সময়ে তিনি যা করেছেন সেটি কোন দেশ করতে পারেনি। আপনারা জনগনের ভোটি নির্বাচিত। মনে রাখতে হবে বঙ্গবন্ধু গ্রামগঞ্চে ঘুড়ে বেড়িয়েছেন দলকে সংগঠিত করার জন্য। তিনি জনগনের মনের ও চোখের ভাষা বুঝতে পারতেন। তাইতো তিনি সাধারন মানুষের পক্ষে স্বাধীনতার কথা বলে ছিলেন। আপনার যারা এই পৌরসভা  নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন তারা জনগনের পাশে থাকবেন। জনগনের সেবায় কাজ করবেন। তাহলে আগামী দিনের জনপ্রতিনিধি হিসাবে আপনার সম্মান থাকবে জনগন আপনাকে ভালো বাসবেন। আপনি নিদৃষ্ট কোন ব্যক্তির জনপ্রতিনিধি না। আপনি আপনার এলাকার সকলের জনপ্রতিনিধি এটা মনে রাখতে হবে।
পাবনা পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র শরীফ উদ্দিন প্রধান স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের বলেন, সাধারন মানুষের সেবায় কাজ করার জন্য আমি এই নির্বাচনে অংশ নিয়েছি এবং সাধারন মানুষ আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। অবহেলিত এই পাবনা পৌরসভাকে আধুনিক ও মডেল পৌরসভা করতে চাই। নির্বাচনের সকল ওয়াদা আমি পালন করার চেষ্টা করবো। কোন অন্যায় কাজ আমি করবো না পাবনা পৌরসভায় কাউকে করতে দিবোনা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া সকল কর্মকান্ড এই পৌরসভাতে বাস্তবায়ন করা হবে বলে জান তিনি।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *