শীতে জবুথবু দেশ, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কুড়িগ্রামে ৫.৫

এফএনএস: কুড়িগ্রাম ও রাজশাহী জেলার উপর দিয়ে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। ময়মনসিংহ, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের অন্য জায়গায় মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে।

এছাড়াও টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ, নিকলি, শ্রীমঙ্গল, খুলনা, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া, বরিশাল ও ভোলা অঞ্চলের ওপর দিয়েও মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এই শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে।

রোববার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিন সকালে আবহাওয়া অধিদপ্তর এসব তথ্য জানায়।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, চলতি মৌসুমের মধ্যে রোববারই প্রথমবারের মতো এত বেশি অঞ্চল শৈত্যপ্রবাহের কবলে এবং এত সংখ্যক অঞ্চলের তাপমাত্রা এত কম রেকর্ড হয়েছে। এ বিষয়ে আবহাওয়াবিদ মো. শাহিনুল ইসলাম বলেন, এ মৌসুমে রোববার প্রথম এত বেশি অঞ্চলে শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যায় এবং সেখানে তাপমাত্রা এত কম। তিনি আরও বলেন, সোমবারও (আজ) এই শৈত্যপ্রবাহ থাকতে পারে। ২ ও ৩ ফেব্রুয়ারি থেকে হয়তো তাপমাত্রা বাড়তে পারে।

শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাওয়া অন্য অঞ্চলগুলোয় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে রাজশাহীতে ৫.৭, ইশ্বরদীতে ৬.২, বগুড়ায় ৭.৭, বদলগাছীতে ৬.৫, তাড়াশে ৯, রংপুরে ৭.২, দিনাজপুরে ৭.৩, তেঁতুলিয়ায় ৭.৫, ডিমলায় ৭, খুলনায় ১০, যশোরে ৭.৬, চুয়াডাঙ্গায় ৬.২, কুমারখালীতে ৮.৫, বরিশালে ৯.৪, ভোলায় ৯.৬, শ্রীমঙ্গলে ৭.৭, ময়মনসিংহে ৯.৫, নেত্রকোণায় ৯.৬, নিকলিতে ১০, গোপালগঞ্জে ৮.৩, মাদারীপুরে ৯.৪, ফরিদপুরে ৮.৯ এবং টাঙ্গাইলে ৮.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

রোববার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারাদেশের কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে।

চট্টগ্রাম ও বরিশাল বিভাগের রাতের তাপমাত্রা সামান্য কমতে পারে এবং অন্য জায়গায় প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

এ ছাড়া সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। ২৪ ঘণ্টা পরবর্তী ৩ দিনে আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন হতে পারে। উপ-মহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উত্তপশ্চিাঞ্চলে অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *