শুরুতে স্ট্রাইক নিতে চাইতেন না টেন্ডুলকার

স্পোর্টস: ব্যাট হাতে ওয়ানডে ক্রিকেটের ধারা বদলে দিয়েছিলেন শচিন টেন্ডুলকার। গড়েছেন অসাধারণ সব কীর্তি। রেকর্ড বইয়ে তার জয়জয়কার। কিন্তু একটি জায়গায় সেই তিনিই থাকতেন গুটিয়ে, কখনোই শুরুতে স্ট্রাইক নিতে চাইতেন না! টেন্ডুলকারের দীর্ঘদিনের উদ্বোধনী জুটির সঙ্গী সৌরভ গাঙ্গুলি শোনালেন সেই গল্প। ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসের সফলতম জুটি টেন্ডুলকার ও সৌরভ। ২৬টি সেঞ্চুরি জুটি গড়েছেন দুজন, জুটিতে তুলেছেন ৮ হাজার ২২৭ রান। দুটিই রেকর্ড।

সফল এই পথচলার বেশির ভাগই এসেছে ইনিংসের শুরুতে জুটি বেঁধে। উদ্বোধনী জুটিতে দুজন ২১ সেঞ্চুরিতে করেছেন ৬ হাজার ৬০৯ রান। এখানেও তাদের কাছাকাছি নেই কোনো জুটি। সৌরভ এখন ভারতের ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআইয়ের সভাপতি। বোর্ডের অফিসিয়াল টুইটারে ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়ালের সঙ্গে তার কথোপকথনে উঠে এলো সেই জুটির প্রসঙ্গ। মায়াঙ্ক জানতে চেয়েছিলেন, “এটা কি উড়ো খবর নাকি সত্যি যে, ইনিংস শুরু করার সময় শচিন সবসময় আপনাকে স্ট্রাইক নিতে জোর করতেন?” মায়াঙ্কের প্রশ্ন পুরো শেষ হওয়ার আগেই মুচকি হাসিতে সৌরভ দিতে শুরু করলেন জবাব।

“সবসময় সে জোর করেছে, সবসময়ৃ। তার জবাব তৈরিই থাকত। মাঝেমধ্যে তাকে বলতাম, ‘তোমারও তো কখনও কখনও প্রথম বল খেলা উচিত, আমিই সবসময় খেলি!’ তার দুটি উত্তর ছিল এই প্রসঙ্গে। একটি হলো, ফর্ম যখন ভালো, তখন নন-স্ট্রাইকে থেকেই চালিয়ে যাওয়া উচিত। আবার ফর্ম যখন ভালো থাকত না, তখন বলত, ‘আমার নন-স্ট্রাইকেই থাকা উচিত, তাতে চাপটা সরে যায়।’ ভালো-মন্দ, দুরকম ফর্মের জন্যই তার উত্তর তৈরি ছিল।” টেন্ডুলকার যে একেবারেই স্ট্রাইক নেননি, তা অবশ্য নয়।

তবে সেটি কিভাবে সম্ভব হয়েছিল, মজার সেই ঘটনাও শোনালেন সৌরভ। “ কখনও কখনও মাঠে নামার সময় দ্রুত তাকে পাশ কাটিয়ে গিয়ে নন-স্ট্রাইকে দাঁড়ালেই কেবল সম্ভব ছিল। তখন সবাই টিভিতে দেখে ফেলেছে, সে স্ট্রাইক নিতে বাধ্য হতো। দু-একবার এরকম হয়েছে। আমি তাকে ছাড়িয়ে এগিয়ে গিয়ে নন-স্ট্রাইকে দাঁড়িয়ে গেছি।” দীর্ঘ ওয়ানডে ক্যারিয়ারে সৌরভ ও অন্য সব সঙ্গী মিলিয়ে ৩৪০ ইনিংসে ওপেন করেছেন টেন্ডুলকার। তার মধ্যে নন-স্ট্রাইকেই ছিলেন ২৯৩ ইনিংসে। প্রথম বলটি খেলেছেন মাত্র ৪৭ বার।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *