সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবী

পিপ (পাবনা) : পাবনা জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান বিদ্যুতের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন অনুুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ১টায় পাবনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে মেহেদী হাসান বিদ্যুত অভিযোগ করেন, ‘ছাত্রলীগের আসন্ন কাউন্সিলে তিনি সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী। তার ক্যারিয়ার ধংস করার জন্য একটি মহল র‌্যাবকে দিয়ে তার নামে মোটর সাইকেল চুরির মামলা দেয়। গত ৬ ফেব্রুয়ারি র‌্যাব তাকেসহ জয় ও মিম নামে আরও দুইজনকে চোরাই মোটর সাইকেলসহ আটক করে পুলিশে সোর্পদ করে। পরে র‌্যাব ক্যাম্পে নিয়ে অমানুষিক নির্যাতন চালিয়ে স্বীকারোক্তি আদায় করে। পরে জামিনে সে ছাড়া পাই। তাকে কলংকিত করতে এ ধরণের মামলা দেয়া হয়েছে বলে তিনি আরও অভিযোগ করেন। অবিলম্বে তার নামে মোটর সাইকেল চুরির মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানান।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা মৎস্যজীবি লীগের সদস্য সচিব মেহেদী হাসান হিরক। তিনি অভিযোগ করে বলেন, গত ৬ ফেব্রুয়ারী একটি চোরাই মোটর সাইকেল ক্রয়-বিক্রয়ের শালিস করে প্রকৃত মোটরসাইকেলের মালিককে ফিরিয়ে দিতে সিদ্ধান্ত দেন ছাত্রলীগ নেতা মেহেদী হাসান বিদ্যুত। কিছুক্ষন পর র‌্যাবের একটি অভিযান দল ঘটনাস্থলে গিয়ে মেহেদী হাসান বিদ্যুতসহ ৬ জনকে আটক করে। পরে ৪জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়। সে সময় কোম্পানী কমান্ডার বলেন চোরদের ধরিয়ে দিতে পারলে বিদ্যুতকে ছেড়ে দেওয়া হবে। পরবর্তিতে ওই রাতেই চোরদেরকে ধরে র‌্যাবের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এরপরেও বিদ্যুতকে হোন্ডা চুরির মামলায় ফাঁসানো হয়। বিদ্যুতের দাবি তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ধ্বংস করতে একটি মহল র‌্যাবকে দিয়ে এ কাজ করিয়েছে। লিখিত বক্তব্যে আরো উল্ল্যেখ করা হয়, ছাত্রলীগ করি, এ জন্য সামান্য মানবিক আচরণতো দুরের কথা ছাত্রলীগ করা যেন মহাপাপ, বার বার দল তুলে গালাগালি করায় আমার কাছে মনে হয়েছে র‌্যাবের গোয়েন্দা ওই সদস্য বিএনপি বা জামায়াত ইসলামের সক্রিয় সদস্য। তার মুখে বারবার একই কথা শালা আওয়ামীলীগ ছাত্রলীগ করো। ক্ষমতা দেখাও। আজ তোদের গরম ডিমের থেরাপি দিয়ে ছাত্রলীগ করার সাধ মিটিয়ে দেবো। তোদের কারনে আমাদের একজন সদস্য পাবনা থেকে বদলী হতে হয়েছে। অনেক দিন ধরে অপেক্ষায় ছিলাম। আজকে তোদের সেই জালে আটকাতে পেরেছি। কালাম চলে গেছে তো কি হয়েছে, আমরা তো সবাই পাবনা থেকে চলে যায়নি। তখন বুঝতে আর বাকি রইল না। বিষয়টা পুর্বপরিকল্পিত একটি সাজানো নাটক।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, পাবনা জেলা মৎসীবীলীগের সদস্য সচিব মেহেদী হাসান হিরোক, ছাত্রলীগ মালঞ্চি ইউপি শাখার সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, বিদ্যুতের দাদী মানবাধিকার নেত্রি মোছা. খোদেজা বেগমসহ ছাত্রলীগের স্থানীয় পর্যায়ের নেতাকর্মিরা।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!