সাঁথিয়ায় সন্ধ্যা নামলেই ডাকাত আতংকে এলাকাবাসী

পিপ (পাবনা) : পাবনার সাঁথিয়ার গোপীনাথপুর-সৈয়েদপুরে ধারাবাহিক ভাবে চলছে ডাকাতি।আইনশৃংখলার চরম অবনতি।সন্ধা নামলেই ডাকাত আতংকে এলাকাবাসী। আইনশৃঙ্খলার অবনতিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

অভিযোগ ও স্থানিয় সুত্রে জানা যায়, পাবনার সাঁথিয়ার আরাজী গোপীনাথপুর গ্রামের আবু সাইদের বাড়িতে ২৬ নভেম্বর রাত ১.৩০টায় ৬/৭ জন ডাকাত তার ঘরের দরজা ভাঙ্গিয়া ঘরে প্রবেশ করে। তার বাড়ির সবাইকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নগদ ৩৮ হাজার টাকা, ৪টা মোবাইল ফোন,১৮ ভরি রুপার গহনা, এক ভরি স্বর্নের গহনা ডাকাতি করে নিয়ে যায়। ডাকাতরা যাবার সময় হুমকি দিয়ে গেছে কাউকে কিছু জানালে জানে মেরে ফেলবে। সাইদের পরিবার জানের ভয়ে বাড়ি ছেরে তার ভাইয়ের বাড়ি গিয়ে উঠছে এবং ভয়ে আছে কখন কি হয়।

এ ঘটনার মাস খানেক আগে গোপীনাথপুর ঈদগাহ মাঠপাড়া গ্রামের মাজেদের বাড়িতে সন্ধ্যা রাতে ৩/৪ জনের একদল ডাকাত মাজেদের স্ত্রী বাড়িতে একা থাকায় তাকে অস্ত্রের মুখে খুঁটির সাথে হাত মুখ বেঁধে রেখে তার ঘরে থাকা তিন হাজার টাকা নিয়ে যায়। ৮ জুলাই সৈয়দপুর গ্রামের হোসেন আলীর বাড়ি,তার কয়েকদিন পর আঃ সাত্তারের বাড়ি ডাকাতি হয় বলে জানা গেছে।থানায় ডাকাতির লিখিত অভিযোগ কারি সাইদের পুরান বাড়ি,সৈয়দপুর গ্রামের শহীদ মাস্টারের বাড়ি,এম্বুলেন্স ড্রাইভার তসলিমের বাড়িতে চুরির ঘটনা ঘঠেছে।

সাধারণ মানুষের দাবী অবিলম্বে ডাকাতদের ধরে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও আইনশৃঙ্খলা উন্নতির জন্য প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছেন।

থানায় ডাকাতির লিখিত অভিযোগকারী আবু সাইদকে কারো সাথে শত্রুতা আছে নাকি জানতে চাইলে তিনি বলেন,আমার কারোসাথে শত্রুতা নাই,কারোসাথে রাগারাগিও হয়নাই কোনদিনও।আমরা খুবই ভয়ে আছি,আবার কখন কি হয়।আমি থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।
এবিষয়ে সাঁথিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসাদুজ্জামান বলেন, ডাকাতির কথা কেউ আমাকে বলেনাই।আমি জানি যে প্রতিবেশীর সাথে সাইদের একটা সমস্যা আছে তার জের ধরেই এসব হচ্ছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!