সাংবাদিক রোজিনার মুক্তির দাবীতে পাবনায় প্রতীকী অনশন কর্মসূচি পালিত

পিপ (পাবনা) : প্রথম আলোর সিনিয়র সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্থা, শারীরিক ভাবে নির্যাতন ও হয়রানীমূলক মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে ও মামলা প্রত্যাহারসহ দোষী ব্যক্তিদের শাস্তির দাবীতে পাবনায় প্রতীকী অনশন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। পাবনা প্রেসক্লাবের লাগাতার তিনদিনের কর্মসূচীর শেষ দিনে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে পূর্বঘোষিত কর্মসুচি অনুযায়ি সকাল থেকে জেলায় কর্মরত সাংবাদিকরা প্রেসক্লাবে এসে জমায়েত হন। বেলা ১১ টার দিকে তাঁরা মধ্য শহরের আব্দুল হামিদ সড়কে প্রতীকি অনশন শুরু করে। বেলা ২টায় পাবনা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা রবিউল ইসলাম রবি বর্তমান সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমানসহ অন্যদের জুস পান করিয়ে সাংবাদিকদের অনশন ভঙ্গ করান।
পাবনা প্রেসক্লাবের লাগাতার তিনদিনের কর্মসূচীর শেষ দিনে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে পাবনা প্রেসক্লাবের সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ইয়াদ আলী মৃধা পাভেলের সঞ্চালনায় আব্দুল হামিদ সড়কের সাত্তার বিশ্বাস মার্কেটের সামনে প্রতীকী অনশন কর্মসূচীতে পাবনায় কর্মরত সংবাদ কর্মীরা অংশ গ্রহন করে। কর্মসূচী চলাকালে বক্তব্য দেন পাবনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এবিএম ফজলুর রহমান, সাধারন সম্পাদক সৈকত আফরোজ আসাদ, প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা রবিউল ইসলাম রবি, পাবনা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহসভাপতি মির্জা আজাদ, অর্থ সম্পাদক শ্রী শুশিল তরফদার, কল্যাণ সম্পাদক সরোয়ার উল্লাস, ক্রীড়া সম্পাদক কলিট তালুকদার, পাবনা রিপোটার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী বাবলা, টেলিভিশন সাংবাদিক সমিতির সভাপতি রাজিউর রহমান রুমি, দি বাংলাদেশ টু-ডে প্রতিনিধি আব্দুল হামিদ খান প্রমুখ।
এছাড়া জেলা শহরের বাইরে ঈশ^রদী, ভাঙ্গুড়া ও ফরিদপুরে কর্মরত সাংবাদিকরা বিক্ষোভ মিছিল এবং মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম পাবনা জেলা ইউনিট মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীদের কয়েকজন জানান, পূর্বঘোষিত কর্মসুচি অনুযায়ি সকাল থেকে জেলায় কর্মরত সাংবাদিকরা প্রেসক্লাবে এসে জমায়েত হন। বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে তাঁরা মধ্য শহরের আব্দুল হামিদ সড়কের বিশ^াস মার্কেটের সামনে প্রতীকি অনশন শুরু করেন। কর্মসুচি থেকে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্থাকারীদের বিচার ও তাঁর নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন পোষ্টার, ব্যানার প্রদর্শণ করা হয়। এ সময় সাংবাদিকদের দাবির সঙ্গে একাত্বতা প্রকাশ করে বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবি সংগঠনের নেতা-কর্মীরা এসে প্রতীকী অনশনে অংশ নেন।
বক্তরা বলেন, সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম দেশের সার্থে কাজ করেন। তিনিই দেশের মানুষের কাছে স্বাস্থ্যখাতের লাগামহীন দূর্নীতির প্রতিবেদন তুলে ধরেছেন। তাঁকে হেনস্থা করা ও মিথ্যা মামলা দিয়ে আটকে রাখা মানে সংবাদ পত্রের স্বাধীনতা ক্ষুন্ন করা। দেশের মানুষের তথ্য অধিকার খর্ব করা।
প্রেসক্লাব সম্পাদক সৈকত আফরোজ বলেন, দূর্নীতিকে আড়াল করতে একজন কলম সৈনিককে হেনস্থা করা দেশের মানুষ মেনে নেয়নি। পুরো দেশ আজ ক্ষুব্ধ। আমরা চাই, দেশবাসীর সঙ্গে সরকারও একাত্ব হবেন। রোজিনা ইসলামকে হেনস্থাকারীদের বিচার করে নজির সৃষ্টি করবেন।
সভাপতির বক্তব্যে এ বি এম ফজলুর রহমান বলেন, জানগনকে দূর্নীতি ও লুটপাট দেখিয়ে দেয়াই একজন সাংবাদিকের পেশাগত দায়িত্ব। সেই দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে হেনস্থা সাংবাদিক সমাজ কোনদিন মেনে নিবে  না। তাই আমরা সরকারের কাছে এই ঘটনার বিচার দাবি ও অবিলম্বে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি। আমরা প্রত্যাশা করি, সরকার দূর্নীতিবাজ একজন কর্মকর্তাকে পশ্রয় না দিয়ে, সত্য ও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করবে।

এদিকে এই কর্মসুচির আগে মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম পাবনা জেলা ইউনিট শহরের আব্দুল হামিদ সড়কে মানববন্ধন করে। এতে ভূমিহীন সংগঠন সহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন এতাত্বতা প্রকাশ করে অংশ নেয়। এছাড়া ঈশ^রদীতে কর্মরত সাংবাদিকরা সকাল থেকেই বিক্ষোভ মিছিল করে বেলা ১১ টার দিকে শহরের স্টেশন সড়কে মানববন্ধনে মিলিত হন। একই সময়ে জেলার ভাঙ্গুড়া উপজেলা প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসুচি পালিত হয়। এতে ফরিদপুর ও ভাঙ্গুড়া প্রেসক্লাবের সাংবাদিকরা অংশ নেন। প্রতিটি কর্মসুচি থেকে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্থাকারীদের বিচার ও তাঁর নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করা হয়।
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *