সাইবার নিরাপত্তা: সতর্কবার্তা দিয়েছে চারটি ভিন্ন মার্কিন সংস্থা

আইটি: জালিয়াতি করে অর্থ স্থানান্তর এবং এটিএম থেকে নগদ অর্থ সরানোর লক্ষ্যে বিশ্বজুড়ে ব্যাংকগুলোতে সাইবার হামলা চালাচ্ছে উত্তর কোরীয় হ্যাকাররা, বুধবার এমন সতর্কবার্তাই দিয়েছে মার্কিন সরকার। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন বলছে, সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ে একটি প্রযুক্তিগত যৌথ সতর্কবার্তা দিয়েছে চারটি ভিন্ন মার্কিন সংস্থা।

ট্রেজারি বিভাগ এবং এফবিআইসহ আরও দু’টি সংস্থার যৌথ সতর্কবার্তা বলছে, উত্তর কোরীয় হ্যাকারদের দিক থেকে চলতি বছর আর্থিক হ্যাকিংয়ের চেষ্টা বেড়েছে। “জালিয়াতি করে অর্থ স্থানান্তর এবং এটিএম থেকে নগদ অর্থ সরানোর উদ্দেশ্যে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে একাধিক দেশের ব্যাংকগুলোকে পুনরায় লক্ষ্য বানাতে শুরু করেছে উত্তর কোরীয় হ্যাকাররা,” বলছে ওই যৌথ সতর্কবার্তা। এই হ্যাকিং প্রচেষ্টাকে ‘ফাস্ট ক্যাশ’ বলছে মার্কিন আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা।

এর জন্য উত্তর কোরিয়ার গোয়েন্দা সংস্থা রিকনিসেন্স জেনারেল ব্যুরোকে দায়ী করেছে মার্কিন আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা। অন্তত ২০১৬ থেকে উত্তর কোরীয় হ্যাকাররা এই কার্যক্রম চালাচ্ছে এবং ক্রমেই এর মাত্রা বাড়িয়েছে বলে দাবি করেছে মার্কিন সংস্থা। গত কয়েক বছর ধরেই উত্তর কোরিয়াকে বিভিন্ন বিষয়ে দোষারোপ করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এশিয়া, দক্ষিণ আমেরিকা এবং আফ্রিকার অনেকগুলো ব্যাংকে উত্তর কোরিয়ার হ্যাকারদের হ্যাকিং চেষ্টার অভিযোগ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রাইভেট খাতের সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠানগুলো।

মার্কিন হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগের জেষ্ঠ্য সাইবার নিরাপত্তা কর্মকর্তা ব্রায়ান ওয়ার বলেন, “অবৈধ সাইবার কার্যক্রমের মাধ্যমে আর্থিক খাতের পাশাপাশি অন্যান্য খাতের সুযোগ নিতে উত্তর কোরীয় সাইবার হামলাকারীদের বিভিন্ন কৌশল দেখা গেছে।” সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ এবং বিদেশি নীতিমালা বিশ্লেষকদের দাবি, দক্ষিণ কোরীয় সরকারকে তহবিল সংগ্রহে সহায়তা করতেই এ ধরনের হ্যাকিং কার্যক্রম চালানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *