সীমান্ত শিগগিরই খুলছে না: নিউ জিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

বিদেশ : অচিরেই দ্বার খুলছে না নিউ জিল্যান্ড। করোনাভাইরাসের এ সঙ্কটে বাকী বিশ্বের জন্য সীমান্ত ‘দীর্ঘদিন বন্ধ রাখা হবে’ বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা অ’ডুর্ন।

ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ার কেবিনেট মিটিংয়ে অংশ নেওয়ার পর এক বক্তব্যে জেসিন্ডা একথা বলেন বলে জানিয়েছে বিবিসি। বৈঠকে অস্ট্রেলিয়া এবং নিউ জিল্যান্ডের মধ্যকার ট্রান্স-তাসমান ভ্রমণ ব্যবস্থা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এ ব্যবস্থায় দু’দেশের নাগরিকরা মুক্তভাবে চলাচল করতে পারেন এবং কোয়ারেন্টিনেও থাকতে হয় না। অস্ট্রেলিয়া এবং নিউ জিল্যান্ড দু’দেশেই করোনাভাইরাসের প্রকোপ কমে এসেছে।

তাই দু’দেশের ট্রান্স-তাসমান ব্যবস্থায় নিরাপদ জোনের এই ভ্রমণ চালু রাখা যেতে পারে বলে জানিয়েছেন জেসিন্ডা। কিন্তু বিশ্বের বাদবাকী দেশগুলোর জন্য নিউ জিল্যান্ডের সীমান্ত শিগগিরিই খুলে দেওয়া হবে না বলেই জানান তিনি। যদিও নিউ জিল্যান্ডের জিডিপি’র একটি বড় অংশই আসে পর্যটন খাত থেকে।

অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, যুক্তরাজ্য থেকেই বেশিরভাগ দর্শণার্থী নিউ জিল্যান্ডে যায়। কিন্তু কোভিড-১৯ সংক্রমণ ঠেকাতে অস্ট্রেলিয়া এবং নিউ জিল্যান্ড দু’ দেশই সম্প্রতি প্রায় সব বিদেশির জন্য দ্বার বন্ধ করেছে। তবে দেশ দু’টিতে সম্প্রতি করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে। মঙ্গলবার নিউ জিল্যান্ডে টানা দ্বিতীয়দিনের মতো কেউ নতুন করে আক্রান্ত হয়নি।

নিউজিল্যান্ডে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্তের সংখ্য্ ১৫০০ এবং মারা গেছে মাত্র ২০ জন। গত সপ্তাহেই দেশটি লকডাউন শিথিল করে চার মাত্রা থেকে ৩ মাত্রায় নামিয়ে এনেছে।

ওদিকে, অস্ট্রেলিয়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৭ হাজার এবং মারা গেছে ৯৬ জন। তবে এ দেশটিতেও নতুন আক্রান্তের সংখ্যা কমে যাওয়ায় অনেক রাজ্যেই লকডাউন শিথিল হয়েছে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *