সুজানগরে যৌতুক নিয়ে বিয়ে করার প্রবণতা বাড়ছে

সুজানগর, পাবনা : পাবনার সুজানগরে যৌতুক নিয়ে বিয়ে করার প্রবণতা বাড়ছে। মেয়ে বিয়েতে যৌতুক নেওয়া যেন নিয়মে পরিণত হয়েছে। মেয়ে ফর্সা বা কালো, যোগ্য বা অযোগ্য সেটা বিবেচ্য বিষয় নয়। মেয়ে বিয়ে দেয়ার কথা উত্থাপন করলেই আগে চাই যৌতুক।

আর এ যৌতুকের দাবি পূরণ করতে না পারায় উপজেলায় প্রতিনিয়ত বিবাহযোগ্য মেয়ের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশেষ করে উপজেলার নিম্ন এবং মধ্যবিত্ত পরিবারের লোকজন মেয়ে বিয়ে দিতে হিমশিম খাচ্ছেন।

তারা যৌতুকের টাকা যোগাড় করতে না পারায় বিয়েরযোগ্য মেয়েকে বিয়ে দিতে পারছেন না। উপজেলার চরশ্রীপুর গ্রামের এক দিনমজুর নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, আমার ঘরে বিয়ের উপযুক্ত একটি মেয়ে আছে। ইচ্ছে ছিল যৌতুক ছাড়া বিয়ে দেব। কিন্তু ঘটকরা বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে আসলেই যৌতুক চায়। যৌতুকের টাকা ব্যবস্থা করতে না পারায় মেয়েটা আজও বিয়ে দিতে পারি নাই। উপজেলার কদিম মালঞ্চী গ্রামের ভুক্তভোগী রইচ উদ্দিন জানান, যেমন তেমন পাত্রের হাতে মেয়েকে পাত্রস্থ করতে গেলে কমপক্ষে ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দিতে হয়। আর শিক্ষিত এবং যোগ্য পাত্র পেতে গেলে ২ লক্ষ টাকার কমেতো কথাই নেই। এ ছাড়া অন্যান্য উপঢৌকনতো আছেই। এদের মধ্যে ২/৪টি পরিবার ধার-দেনা করে যৌতুক দিয়ে মেয়ে বিয়ে দিলেও অধিকাংশ পরিবার দিতে পারছেন না। এসব পরিবারে বিয়ের উপযুক্ত মেয়ে বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। অপর দিকে যৌতুকের দাবি পূরণ করতে না পারায় বিভিন্ন গ্রামে দাম্পত্য জীবনে চরম অশান্তি চলছে বলেও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা যায়। কোথাও কোথাও আবার যৌতুকের দাবি পূরণ করতে না পারায় স্বামীর হাতে স্ত্রী নির্যাতিত হচ্ছে বলেও খবর পাওয়া গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *