সেনা পাঠালেন ট্রাম্প, তাড়িয়ে দিলেন মেয়র

বিদেশ : কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিক মার্কিন জর্জ ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদে আমেরিকাজুড়ে চলছে তীব্র আন্দোলন। আন্দোলনকারীদের ঠেকাতে মরিয়া প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বারবার হুমকি দিয়েছিল সেনা মোতায়েনের। সেই মোতাবেক তার নির্দেশে ওয়াশিংটন ডিসিসহ সারা দেশে পুলিশ, ন্যাশনাল গার্ড ও ফেডারেল ফোর্স মোতায়েন করা হয়। তবে ওয়াশিংটন ডিসির মেয়র মুরিয়েল বোসার কঠোর আহ্বানে মোতায়েন থাকা ও হোটেল অবস্থান নেওয়া সেনা সদস্যরা ৫ জুন রাজধানী ত্যাগ করেছেন।

যুক্তরাজ্যের সংবাদ মাধ্যম ‘দ্য গার্ডিয়ান’-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ইউটাহ ন্যাশনাল গার্ডের দুই শতাধিক সেনাসদস্য তাদের ব্যাগ গুছিয়ে ৫ জুন দুপুরের মধ্যে হোটেল ত্যাগ করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। অঙ্গরাজ্যের রিপাবলিকান সিনেটর মাইল লি অভিযোগ করে বলেন, ইউটাহ ন্যাশনাল গার্ডের সদস্যসহ অন্য ন্যাশনাল গার্ডের হাজারো সেনাসদস্যকে হোটেল থেকে ওয়াশিংটন ডিসির মেয়র মুরিয়েল বোসার বের করে দিয়েছেন। এ ব্যাপারে ওয়াশিংটন ডিসির মেয়র মুরিয়েল বোসারের অফিস থেকে তাৎক্ষণিক কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

লির অফিস থেকে জানানো হয়েছে, ইউটাহ ন্যাশনাল গার্ডের সদস্যরা কোথায় যাচ্ছেন, তা এখনো জানা যায়নি। তবে তাদের ওয়াশিংটন ডিসি ছেড়ে যাওয়া উচিত হবে না। প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে সারা দেশ থেকে প্রায় সাড়ে চার হাজার ন্যাশনাল গার্ডের সেনাসদস্য ওয়াশিংটনে পৌঁছেছেন। তাঁদের পাশাপাশি রাজধানীতে ব্যুরো অব প্রিজনস, ড্রাগ এনফোর্সমেন্ট এজেন্সি, এফবিআই ও ইউএস মার্শাল বিক্ষোভ দমনে কাজ করার কথা।

সব মিলিয়ে ওয়াশিংটনে ৭ হাজার ৬০০ সেনাসদস্য ও কর্মকর্তা মোতায়েন করা হয়। সেনা সদস্যদের রাজধানী থেকে সরিয়ে নিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে এক চিঠিতে ওয়াশিংটন ডিসির মেয়র মুরিয়েল বোসার বলেছেন, ‘ওয়াশিংটনে সামরিক পুলিশ এবং অন্যান্য ফেডারেল প্রতিষ্ঠানের আইন প্রয়োগকারী ইউনিটগুলোর উপস্থিতির কারণে উদ্বিগ্ন। কারণ এতে জাতীয় নিরাপত্তা হুমকির সম্মুখীন হবে। এখানকার দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরাই বিষয়টি ভালোভাবে মোকাবিলা করতে সক্ষম। এ কারণে ডিসির কর্মকর্তা ও ফেডারেল সরকারের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হচ্ছে।

এজন্য ওয়াশিংটন ডিসি থেকে সেনাসদস্য ও ফেডারেল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সরিয়ে নিতে আপনাকে অনুরোধ জানাচ্ছি।’ মেয়র মুরিয়েল বোসার হোয়াইট হাউসের সামনের রাস্তার নতুন নামকরণ করেছেন ‘ব্ল্যাক লাইবস মেটার প্লাজা’। মূলত এই স্লোগানেই প্রতিবাদে মুখর হয়ে উঠেছে আমেরিকা। হোয়াইট হাউসের সামনের রাস্তায় হলুদ রং দিয়ে এই স্লোগান লিখে দেওয়া হয়।

বিক্ষোভকারীদের সম্মান জানাতেই এই নামকরণ বলে জানালেন ওয়াশিংটন ডিসির মেয়র মুরিয়েল বোসার।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *