সৌদি আরবে ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলার ‘চেষ্টা’ হুতিদের

বিদেশ : ইয়েমেনের হুতিরা ক্ষেপণাস্ত্র ও বিস্ফোরক ভরা ড্রোন দিয়ে সৌদি আরবে হামলার চেষ্টা করলেও তা ব্যর্থ করে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছে জোট বাহিনী। সোমবার সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থার প্রকাশিত বিবৃতিতে দেশটির নেতৃত্বাধীন জোট বাহিনী জানায়, রাতে সৌদি আরব লক্ষ্য করে হুতিদের ছোঁড়া চারটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ও তাদের পাঠানো সাতটি ড্রোনের গতিরোধ করে সেগুলোকে ধ্বংস করে দিয়েছে তারা। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেছে কি না, সে বিষয়ে কিছু জানায়নি জোট বাহিনী।

জুলাইয়ের প্রথমদিকে সৌদির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের খবরে বলা হয়েছিল, হুতিরা সীমান্তের অপর পাশে সৌদি আরবে ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলার পদক্ষেপ নেয়ায় ইরান-সমর্থিত গোষ্ঠীটির বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান শুরু করেছে জোট বাহিনী। ২০১৪ সালের শেষ দিকে সৌদি-সমর্থিত আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ইয়েমেনের সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করে রাজধানী সানা থেকে বের করে দেয় হুতি বিদ্রোহীরা। দুর্নীতিগ্রস্ত একটি ব্যবস্থার বিরুদ্ধে তারা লড়াই করছে বলে ওই সময় দাবি করেছিল হুতিরা।

এরপর প্রায় তিন মাসের মধ্যে হুতিরা দেশের অধিকাংশ এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিলে ২০১৫ সালের ২৫ মার্চ ইয়েমেনে হস্তক্ষেপ করে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট বাহিনী। সৌদি আরবের নেতৃত্বে পারস্য উপসাগরীয় সুন্নি প্রধান আরব দেশগুলোর বাহিনী এই সামরিক জোটে অংশ নেয়। তারপর থেকে এই বাহিনী ইয়েমেনে শিয়া মতবালম্বী হুতিদের অবস্থান লক্ষ্য করে ব্যাপক বিমান হামলা শুরু করে। ইয়েমেনের এই যুদ্ধকে বিশ্লেষকরা আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বী সৌদি আরব ও ইরানের মধ্যকার ছায়া যুদ্ধ হিসেবে বিবেচনা করেন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *