হতদরিদ্রের ২৫শত টাকার তালিকায় সঠিক তথ্য দেওয়ায় আটঘরিয়ায় এক শিক্ষকের উপর সন্ত্রাসী হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাবনা : পাবনার আটঘরিয়ায় উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি কেএম রইচ উদ্দিন রবির উপর অর্তকিত হামলা করেছে সন্ত্রাসীরা। সরকারের জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে হতদরিদ্রের জন্য ২৫শত টাকার সাহায্যের তালিকা যাচাই করার অপরাধে তার উপর এই হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে দাবী ওই শিক্ষকের। মঙ্গলবার রাতে রামেশ্বরপুর পূর্বপাড়ায় এই ঘটনা ঘটে। বর্তমানে গুরুত্বর আহত অবস্থায় আটঘরিয়া স্বাস্থ্য কমল্পেক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সরাবাড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও আহত রইচ উদ্দিন রবির বলেন, মাজপাড়া ইউনিয়নের ৫ নাম্বার ওয়াডের সরকারের জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে হতদরিদ্রের জন্য ২৫ শত টাকার সাহায্যের তালিকা যাচাই করার দায়িত্ব পরে আমার উপর। আমি যাচাই বাছাই শেষে দেখি বেশিরভাগ আইডি কাড ও মোবাইল নম্বর ভুয়া এব রাঘবপুর গ্রামের মত আব্দুস সাত্তার বিশ্বাসের ছেলে শামসুল ইসলাম বিশ্বাস ৫ বছর আগে মারা গেছেন তারও নাম তালিকায় রয়েছে। সব বিষয় তুলে ধরে আমি সঠিক রিপোট পেশ করি। রিপোটটি তাদের বিরুদ্ধে গেলে তারা আমার উপর ক্ষুব্ধ হয়। গত কয়েকদিন ধরে আমাকে বিভিন্ন ধরনের হুমকী দিয়ে আসছিল। পরে সুপরিকল্পিতভাবে তারা আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে এই হামলা চালায়।

তিনি আরো বলেন, মঙ্গলবার রাতে আমি রামেশ্বরপুর বাজার থেকে মোটর সাইকেল যোগে মাজপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক জিন্নাত আলীর সাথে মোটর সাইকেল যোগে বাড়ী ফিরছিলাম। এ সময় ১০/১৫জনের একদল সন্ত্রাসী পথ গতিরোধ করে লাঠি শোঠা ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারীভাবে মারপিট ও কুপাতে থাকে। এ সময় আমাদের চিৎকারে স্থানীয়রা দ্রুত এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসনীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আমাদের উদ্ধার করে আটঘরিয়া হাসপাতালে ভর্তি করে।

মাজপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক জিন্নাত আলী বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল গফুরের এলাকায় নিজস্ব বাহিনী খ্যাত সন্ত্রাসীরা ইউপি সদস্য জাবেদ আলী ও আজগর আলীর নেতত্বে টিটু, আশরাফ হোসেন, উজ্জল মিয়া, রঞ্জু, আব্দুর রশিদ, সামাদ আলী, দুলাল হোসেন, ইকবাল, ফরিদ আলী, জুয়েল হোসেন, তুহিন বিশ্বাস ছিল এই ঘটনার সময়। শিক্ষক রইচ উদ্দিন রবি সঠিক তথ্য দেওয়ার জন্যেই তারা ক্ষুব্ধ হয়। আমি তার সাথে মোটরসাইকেলে থাকায় তারা আমার উপরও হামলা করেন। আমরা দুইজনেই হাসপাতালে ভর্তি আছি। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে বিচারও দাবী করেন তিনি।

ইউপি সদস্য জাবেদ আলী বলেন, সন্ত্রাসী হামলা হয়ে রবি ও জিন্নাহ আহত হয়েছে শুনেছি। তবে হতদরিদ্রের জন্য ২৫ শত টাকার তালিকা যাচাই নিয়ে তার সাথে ওই প্রধান শিক্ষকের বাগবিতন্ডা হয়েছিলো এবং ওই তালিকায় তার নিজের ফোন নম্বর একাধিক ব্যক্তির তালিকায় ছিলো এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমার ফোন নাম্বার কেউ দিতেই পারে এতে দোষের কি আছে।

মাজপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল গফুর এই ঘটনার সাথে তার সম্পক্ততা নেই দাবী করে বলেন, আমারসহ বিভিন্ন লোকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে লেখালেখি করে বেড়ায়, কে তাদের মারপিট করেছেন আমি জানি না।

আটঘরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান তানভীর ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ইতিপবেও অনেক অভিযোগ পেয়েছি। তারমধ্যে অগ্রাধিকার ভিত্তিক তালিকা প্রলয়ন, ত্রান কার্যক্রম, ভিজিডি এবং স্বল্প মূল্যে চাউলের তালিকাসহ সরকারের বিভিন্ন কাজে অনিয়ম দূর্ণীতি ও আত্মসাৎ এর অভিযোগ রয়েছে। আমরা উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা প্রশাসন মিলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করবো বলেও জানান তিনি।

আটঘারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কমকতা আসিফ মো: সিদ্দিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ধরনের খবর পাওয়অর সাথে সাথেই আমাদের পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদশন করেছেন। উনার হাসপাতালে চিকিৎসায় থাকায় লিখিতভাবে অভিযোগটি এখনো দিতে পারেন নাই। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *