১৭ বছরের’ কিশোরকে বিয়ে করায় ভারতে তরুণী গ্রেপ্তার

ডেস্ক: সতের বছর বয়সী এক কিশোরকে বিয়ে করার অভিযোগে ভারতের পুলিশ মুম্বাইয়ের এক নারীকে গ্রেপ্তার করেছে। ২০ বছর বয়সী ওই তরুণী তাদের পাঁচ মাসের কন্যাকে নিয়ে সপ্তাহ দুই ধরেই জেলখানায় আছেন।

শাশুড়ির অভিযোগের প্রেক্ষিতে ওই নারীকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছে বিবিসি। তরুণীর দাবি, বিয়ের সময়ও তার স্বামী প্রাপ্তবয়স্কই ছিলেন। দুজনের সম্মতিতেই সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ভারতের আইনে, নারী-পুরুষ সবাই ১৮ বছর বয়সেই প্রাপ্তবয়স্ক হিসেবে গণ্য হন। মেয়েদের জন্য এটিই বিয়ের সর্বনিম্ন বয়স হলেও ছেলেদের ক্ষেত্রে বয়স হতে হয় অন্তত ২১। যে কারণে পুলিশ ওই নারীর বিরুদ্ধে শিশু যৌন নির্যাতন আইনের পাশাপাশি বাল্যবিবাহ সুরক্ষা আইনেও অভিযোগ এনেছে।

দক্ষিণ এশিয়ার এ দেশটিতে বাল্যবিয়ের হার এমনিতেই অনেক। ভারতে অল্পবয়সীকে মেয়েকে বিয়ে করার অভিযোগে পুরুষ স্বামীকে গ্রেফতারের খবর হরহামেশা পাওয়া গেলেও কম বয়সী ছেলেকে বিয়ে করার অভিযোগে কোন নারীকে গ্রেফতারের ঘটনা বিরল।

গত বছরের ডিসেম্বরে ওই ‘কিশোর’টির মা তার ছেলেকে অপহরণ ও জোর করে বিয়ে দেওয়ার অভিযোগ করেছিলেন। তরুণীটির সঙ্গে তার ছেলের দুই বছর ধরে যোগাযোগ ছিল অভিযোগে জানান মা; যোগাযোগ বন্ধ করে দিলে ওই তরুণী আত্মহত্যারও হুমকি দিয়েছিল। বিস্তৃত তদন্ত শেষে ওই নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে মুম্বাই পুলিশ। অভিযুক্ত নারী হওয়ায় এ বিষয়ে আইনি পরামর্শও নেওয়া হয়েছে, জানিয়েছে তারা।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *