২১ দিনের লকডাউন ভাঙলেই হাজতবাস ২ বছর

বিদেশ : চিনের মারণ করোনাভাইরাস ঠেকাতে মঙ্গলবার রাত বারোটা থেকেই দেশজুড়ে ২১ দিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই ঘোষণায় তিনি বারবার দেশবাসীকে অনুরোধ করেছেন যাতে কেউ এই তিন সপ্তাহ বাড়ির বাইরে না বের হন।

তবে কেউ যদি এই আর্জিকে শুধুমাত্র আর্জি হিসেবেই নেন তাহলে ভুল করবেন। কারণ এই নির্দেশিকা অমান্য করলে অভিযুক্তের দু বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে! এমনটাই হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, ইতোমধ্যে দেশজুড়ে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা আইন লাগু করে দেওয়া হয়েছে। সেই প্রেক্ষিতে লকডাউন সময় কেউ কেন্দ্রের এই পদক্ষেপ ভাঙলে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা আইন প্রযোজ্য হবে।

সে ক্ষেত্রে অভিযুক্ত কোনো ব্যক্তির দু বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে। শুধু তাই নয়, কোন সরকারি কর্মীকে লকডাউন পরিস্থিতিতে তার কাজে বাধা দিলেও তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। আরও জানানো হয়েছে, কেন্দ্রের তরফে আশা নির্দেশিকা পালন না করলে তো শাস্তি হবেই, নির্দেশিকা অমান্য যদি কারুর মৃত্যু হয় তবে নিয়ম লঙ্ঘনকারী ব্যক্তি আরও কঠোর শাস্তি পেতে পারেন।

সরকারি কর্মীদের প্রতি এই নির্দেশিকায় কড়া বার্তা দেওয়া হয়েছে। যদি কোন সরকারি কর্মী এমন আপতকালে তার কর্তব্য থেকে সরে আসেন তাহলে তিনি কঠোর শাস্তি পাবেন। আবার সরকারি কর্মী যদি কোন আইন বিরুদ্ধ কাজ করেন তাহলেও তার হতে পারে জেল। কিছু ক্ষেত্রে জরিমানা ও জেল একসঙ্গে হতে পারে।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *