পুলিশের অভিযান, ক্যাসিনো খেলার সরঞ্জাম-টাকা-মাদক উদ্ধার

ডেস্ক : রাজধানীর বাণিজ্যিক এলাকাখ্যাত মতিঝিলের চারটি ক্লাবে অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। অভিযানে ক্লাবগুলো থেকে ক্যাসিনো খেলার সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। এ ছাড়া অন্য দু’একটি ক্লাব থেকে নগদ টাকা, মাদক উদ্ধার করা হয়েছে। অভিযান চালানো ক্লাবগুলো হলো- মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব, আরামবাগ ক্রীড়া চক্র, দিলকুশা স্পোর্টিং ক্লাব ও ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাব। গতকাল রোববার দুপুর আড়াইটা থেকে ক্লাবগুলোতে অভিযান শুরু করে পুলিশ।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অভিযান চলছিলো। এ বিষয়ে মতিঝিল বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) আনোয়ার হোসেন জানান, চারটি ক্লাব থেকেই ক্যাসিনো খেলার সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। এখন এসব মালামাল সিজ করা হবে। আমাদের পুলিশ সেগুলোর তালিকা করছে। কোন ক্লাবে বেশি খেলা হতো সিজার লিস্টে পরে জানা যাবে। তবে সব ক্লাবেই ক্যাসিনো খেলার সরঞ্জাম জব্দ করা হয়েছে। এ ছাড়া চারটি ক্লাবের মধ্যে শুধু ভিক্টোরিয়া ক্লাব থেকে এক লাখ টাকা ও একটি মদের বোতল উদ্ধার করা হয়েছে। অভিযান চলমান থাকবে বলেও জানান তিনি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, এখনো কাউকে আটক করা হয়নি, তবে যেভাবে হোক আমরা ক্লাবে ক্লাবে প্রবেশ করে অভিযান চালিয়েছে।
গত ১৮ সেপ্টেম্বর দুপুরে ফকিরাপুলের ইয়াংমেন্স ক্লাবে অবৈধ ক্যাসিনোতে চালানো অভিযানের মধ্য দিয়ে ক্যাসিনোর বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে র‌্যাব। সেখান থেকে দুই নারীসহ ১৪২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। ওইদিনই গুলশানের বাসা থেকে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ইয়াংমেন্স ক্লাবের সভাপতি খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে গ্রেফতার করা হয়। তার কাছ থেকে অবৈধ অস্ত্র, গুলি, মাদকও জব্দ করা হয়। পরে আরও কয়েকটি ক্লাবে অভিযান চলে। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলীয় ফোরামে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের কতিপয় নেতার নানা অনিয়ম নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী নিজেদের পদ থেকে পদত্যাগ করতে বাধ্য হন। প্রধানমন্ত্রীর ক্ষোভের পরই র‌্যাবের এই অভিযান শুরু হয়। পুলিশ জানিয়েছে, ঢাকায় ক্লাবভিত্তিক ক্যাসিনো বা জুয়ার আসর বন্ধের পর দেশজুড়ে শুরু হচ্ছে এই অভিযান। পুলিশ সদর দফতর থেকে সারাদেশে জুয়া আর জুয়াড়িদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে এসপিদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মহানগর, জেলা ও উপজেলা থেকে শুরু করে গ্রাম পর্যন্ত জুয়ার গডফাদার, জুয়া বোর্ড পরিচালনায় জড়িত এবং জুয়াড়িদের এলাকাভিত্তিক তালিকা তৈরিও শুরু হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *