৭০০ উইকেটের আশায় অ্যান্ডারসন

স্পোর্টস: বয়স ৩৮ পেরিয়ে গেছে। টেস্টে ৬০০ উইকেট পেয়ে গেছেন। ফাস্ট বোলার হিসেবে এটি ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম কীর্তি। তবে এতেই যারা ভাবছেন, জেমস অ্যান্ডারসনের ক্যারিয়ার শুধু সমাপ্তি ঘোষণার অপেক্ষায় সময় গুনছে, তারা ভুল ভাবছেন। ইংলিশ পেসার মঙ্গলবার পাকিস্তান অধিনায়ক আজহার আলীর উইকেটটা নিয়ে ৬০০ ছোঁয়ার পর নিজেই বলেছেন, মুত্তিয়া মুরালিধরন ও শেন ওয়ার্নের মতো ৭০০ উইকেট নেওয়ার স্বপ্নও তিনি দেখেন।

এ নিয়ে এরইমধ্যে কথাও বলেছেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক জো রুটের সঙ্গে। সাউদাম্পটনে পাকিস্তানের সঙ্গে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্টটি ড্র হওয়ার পর অ্যান্ডারসন ক্রিকেট ওয়েবসাইট ইএসপিএন-ক্রিকইনফোকে বলেছেন, ‘এ নিয়ে জোর (রুটে) অল্পবিস্তর কথা হয়েছে আমার এবং সে বলেছে যে অস্ট্রেলিয়ায় (পরের বছর অ্যাশেজে) আমাকে দেখতে চায়। অস্ট্রেলিয়া সফরে না থাকতে পারার কোনও কারণ তো আমি দেখি না। আমি সবসময়ই আমার ফিটনেস নিয়ে কঠোর পরিশ্রম করি।

আমি ম্যাচেও কঠোর পরিশ্রম করে যাই।’ মুত্তিয়া মুরালিধরন (৮০০), শেন ওয়ার্ন (৭০৮) ও অনিল কুম্বলের (৬১৯) পর টেস্ট ইতিহাসের চতুর্থ সর্বোচ্চ উইকেটশিকারী বোলার এখন অ্যান্ডারসন। তারপরও তার মনে হয়েছে এই গ্রীষ্মে মনমতো বোলিং তিনি করতে পারেননি, কিন্তু ৭০০ উইকেটের মাইলফলক ছোঁয়াটা খুবই সম্ভব বলে মনে করছেন তিনি, ‘পুরো গ্রীষ্মে আমি প্রত্যাশামতো বোলিং করতে পারিনি। কিন্তু এই টেস্টে আমি খুব উজ্জীবিত ছিলাম এবং মনে হয়েছে দলকে আমার আরও কিছু দেওয়ার আছে।

যতদিন এমনটা আমার মনে হবে ততদিনই আমি চালিয়ে যেতে চাই। আমি এখনও মনে করছি না ইংল্যান্ডের হয়ে আমি শেষ টেস্ট ম্যাচগুলো জিতে ফেলেছি। আমি কি ৭০০ উইকেট পেতে পারি না? কেন নয়?’ সর্বশেষ টেস্টে ২৯তম বারের মতো ইনিংসে পাঁচ উইকেট পেয়েছেন অ্যান্ডারসন।

রিচার্ড হ্যাডলি ছাড়া এর চেয়ে বেশিবার এমন কীর্তি আর কারো নেই। এখনও নিজের ভেতরে ভালো করার তাড়নাটা তিনি বোধ করেন এবং এটাই তাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে, ‘আমরা এখনও টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের মধ্যে রয়েছি। আরও কয়েকটি সিরিজ আমাদের সামনে আছে, যা থেকে আছে জেতার সুযোগ। এটাই আমার আগ্রহের জায়গা। আমি এখনও প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে অনুশীলনে যেতে ভালোবাসি, এখনও মাঠের মধ্যে ঘাম ঝরাতে পছন্দ করি এবং ড্রেসিংরুমে ছেলেদের সঙ্গে ইংল্যান্ডের আরেকটি জয়ের চেষ্টায় একাট্টা হই।’

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!